IMG_20170705_141844_1

বিগত ১০ই মার্চ ২০১৫ইং বিয়ের ঠিক ১১মাসের মধ্যেই শ্রীপুর গ্রামের ৩নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা শ্রীঃ নকুল দাসের কন্যা পুনম দাসকে একই গ্রামের ৫নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা আশিষ দাস(স্বামী), বিনতা দাস(শাশুড়ি) ও মনিকা দাস(ননদ) পনের দায়ে নির্মম ভাবে পুড়িয়ে হত্যা করে। ঘটনার দিনই পুনম দাসের পিতা শ্রীঃ নকুল দাস, আশিষ দাস ও তার পরিবারের উপর পনের দায়ে হত্যার অভি্যোগ এনে ধর্মনগর থানায় মামলা দায়ের করেন। দীর্ঘ ১৪মাসের সুনানী শেষে মাননীয় বিচারপতি, উত্তর ত্রিপুরা জেলা আদালতে আজ (০৫.০৭.২০১৭)পুনম দাসকে হত্যার দায়ে শাশুড়ি বিনতা দাসকে দোষী সাব্যস্ত করেন এবং আশিষ দাস(স্বামী)কে উপযুক্ত প্রমানের অভাবে মামলা থেকে রেহাই দেওয়া হয়। যদিও পুলিশ এর সহযোগিতায় চার্য-শীট তৈরির সময়ই তৃতীয় অভিযুক্ত মনিকা দাস(ননদ)কে কোন এক অজ্ঞাত কারনে মামলার তদন্ত থেকে রেহাই দেওয়া হয়।


আমরা মাননীয় আদালতের বিচারকে আন্তরিক সন্মান জানাই এবং ন্যায় ব্যাবস্থার প্রতি আমাদের আস্থা ব্যাক্ত করছি। যদিও আমরা মাননীয় আদালতের রায়ে পুর-পুরি সন্তুষ্ট নই তাই আমরা আগামীদিনে আশিষ দাস(স্বামী)ও মনিকা দাস(ননদ)এর কঠুর শাস্তী চেয়ে উচ্ছ-আদালতে আবেদন করার ইচ্ছা ব্যাক্ত করছি।
আমি আমার ব্যাক্তিগত তরফ থেকে এবং পুনম দাসের পরিবারের পক্ষ থেকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই সকল স্তরের জনগনকে, ধন্যবাদ জানাই শ্রীপুর ও দেওয়ানপাশা গ্রাম পঞ্চায়েত কতৃপক্ষকে, ধন্যবাদ জানাই সকল সামাজিক সংস্থাকে, ধন্যবাদ জানাই রাজ্যের সকল প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক সংবাদ মাধ্যম ও সংবাদ কর্মীদের যারা বিভিন্ন সময়ে প্রয়োজনীয় সংবাদ প্রকাশের মাধ্যমে আমাদের সাহায্য করেছেন।